ইতিহাসের সাক্ষী: মুক্তিযুদ্ধ ও গণহত্যা

নয়ন আহমেদ ||

কবি পথিক মোস্তফার ” বরিশালে গণহত্যা” বাঙালির অহংকার আর গৌরবের অবিস্মরণীয় অধ্যায় মুক্তিযুদ্ধ। রক্তসাগর পেরিয়ে, পর্বতসম প্রতিকূলতা ডিঙিয়ে সে অর্জন করেছে এক মহান বিজয়। বিশ্বমানচিত্রে সূচিত করেছে নতুন এক আত্মপরিচয়। নতুন এক ভূগোল। নতুন এক মানচিত্র। লাল সবুজের পতাকা। কিন্তু এর জন্য দিতে হয়েছে চড়া মূল্য। কবি পথিক মোস্তফা কুশলী হাতে সেই চড়া মূল্যেরই আখ্যান তুলে ধরেছেন” বরিশালে গণহত্যা: প্রেক্ষিত ‘৭১-এর ওয়াপদা বধ্যভূমি” গ্রন্থে।

বাংলা ভাষার সম্পাদিত বইয়ের মধ্যে এটি একটি উল্লেখযোগ্য সংযোজন। এই গ্রন্থে বিশ্বে সংঘটিত গণহত্যার বিবরণ যেমন রয়েছে, তেমনি বরিশালের ওয়াপদা কলোনির মর্মস্পর্শী ঘটনা বিধৃত হয়েছে এক অসাধারণ ভাষায়। সাক্ষাৎকার ভিত্তিক ঘটনাপ্রবাহ কিংবা সে সময়ের স্মৃতি, প্রত্যক্ষদর্শী বা মুক্তিযোদ্ধাদের ধারাভাষ্য রূপায়িত হয়েছে তাদেরই জবানিতে। বরিশালের আঞ্চলিক ভাষায় তাদের স্মৃতিকথন প্রাণবন্ত হয়েছে।

পাঠক সেই স্মৃতির ভেতর ডুব দিতে দিতে অশ্রু- সাগরে স্নাত হবেন। সে দিনের লোমহর্ষক বর্ণনা শুনে ভাববেন কী করে একটা দেশ স্বাধীন হয়! কতটা রক্ত ঢেলে দিতে হয়! কত মায়ের বুক খালি হয়, কত পিতার পাঁজর ভেঙে যায়, কত স্ত্রীকে হারাতে হয় প্রিয় স্বামীকে, স্বামী তার স্ত্রীকে, ভাই তার বোনকে কিংবা বোন তার ভাইকে। এভাবেই তো আসে স্বাধীনতা। রক্ত দিয়ে কিনতে হয়।
বইটির মূল্যবান ভূমিকা লিখে দিয়েছেন বরিশাল বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য প্রফেসর ড. ছাদেকুল আরেফিন। বইটি উৎসর্গ করা হয়েছে জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান ও মুক্তিযুদ্ধের সকল বীর শহীদকে। বইটির প্রচ্ছদ করেছেন গল্পকার ধ্রুব এষ। তার দৃষ্টিনন্দন প্রচ্ছদ সবাইকে মুগ্ধ করবে।
বইটি প্রকাশ করেছেন “পথিমিতা প্রকাশন”-এর স্বত্বাধিকারী মৌমিতা বিনতে মিজান।

ঝকঝকে ছাপা ২০৮ পৃষ্ঠার এ বইটির দাম রাখা হয়েছে ৪০০ টাকা। কীর্তনখোলা পাড়ের বরিশাল তথা বাংলাদেশকে জানতে, বাংলাদেশের পরিচয় পেতে একটি অপরিহার্য বই এটি। বইটি রকমারিডটকম-এ অর্ডার করা যাবে।

Next Barisal banner ads

Leave a Reply

Your email address will not be published.