দানবীর নাজিমদ্দিন

মোঃ মোস্তাফিজুর রহমান
.
পাহাড়ঘেরা ঝিনাইগাতীর কাংশা ইউনিয়ন
গান্ধীগাঁওয়ের নাজিমদ্দিন আলোকিত মন।
অতি দুঃখী নাজিমদ্দিন নিত্য অভাব ঘরে
উপায়ান্তর না পেয়ে তাই ভিক্ষাবৃত্তি করে।
.
ভাঙা ঘরে করতো বসত জরাজীর্ণ মনে
সুখের ছোঁয়া লাগে’নি তার সুদীর্ঘ জীবনে।
ভিক্ষাবৃত্তির আয়ে চলতো নাজিমের সংসার
নতুন ঘরের স্বপ্ন নাজিম দেখতো বারংবার।
.
দুই বছরে ভিক্ষার টাকায় ঘর বানাতে চায়
ক্ষুদ্র ক্ষুদ্র সঞ্চয়ে সে দশহাজার জমায়।
করোনা ভাইরাস মহামারিতে দুর্ভোগে জনগণ যখন
নাজিমদ্দিন তাঁর সব পুঁজি কোষাগারে দিলেন তখন।
.
দেশ বাঁচলে, বাঁচবো আমি, তুলবো না আর ঘর
আমার টাকা করলাম দান, খেয়ে বাঁচুক পর।
নাজিমদ্দিনের মহানুভবতা, দানবীর মনোবল
দেশের জন্য বিলিয়ে দিলেন ভিক্ষার শেষ সম্বল!
.
বিশ্ববাসী পঞ্চমুখ আজ, বদান্যতা দেখে তাঁর
বঙ্গবন্ধু কন্যা দিলেন তাঁকে, পাকাবাড়ি উপহার!
নতুন ঘরে নাজিমের আজ সুখের সীমা নাই
বাংলার বুকে প্রতিঘরে এমন নাজিম চাই।
লেখক পরিচিতি:
মোঃ মোস্তাফিজুর রহমান
সার্কেল অ্যাডজুট্যান্ট, বাংলাদেশ আনসার ও ভিডিপি
চট্রগ্রাম।
Next Barisal banner ads

Leave a Reply

Your email address will not be published.