মহানবি হযরত মুহম্মদ (স.) : সিরাত গ্রন্থের অনন্য সংযোজন

ফিরোজ মাহমুদ ।।

বিশ্ব মানবতার মহান দূত হযরত মুহম্মদ (স.) নিঃসন্দেহে সমগ্র বিশ্বের জন্য রহমত স্বরূপ। অনুপম চরিত্রের এক জলন্ত প্রমাণ তাঁর জীবনের প্রতিটি পরতে লক্ষ্যণীয়। পবিত্র কুরআনে আল্লাহ রাব্বুল আ’লামীন ইরশাদ করেছেন-‘আল্লাহর রাসুল (স.) এর চরিত্রে তোমাদের জন্য রয়েছে সর্বোত্তম আদর্শ।’ মহানবি (স.) এর জীবনের প্রতিটি কথা, কাজ এবং রীতিনীতিতে সমগ্র বিশ্ব মানবতার জন্য রয়েছে অনুকরণীয় আদর্শ। মহানবি (স.) এর ব্যক্তিগত, পারিবারিক, সামাজিক, রাজনৈতিক, অর্থনৈতিক, আদর্শিক, সাংস্কৃতিক এবং আন্তর্জাতিক বিষয়াবলী সহ মানব জীবনের সামগ্রিক বিষয়ের এক অনুকরণীয় আদর্শের চরম পরাকাষ্ঠা তাঁর জীবন চরিত।

মহানবি (স.) এর পবিত্র জীবন ও কর্ম সম্পর্কে জানার জন্য নির্ভরযোগ্য সিরাত গ্রন্থের উপর আমাদের আস্থা রাখতে হয়। আমাদের প্রিয় নবিজির জীবন চরিত পাঠ করলে তাঁর জন্ম থেকে ইন্তেকাল পর্যন্ত গোটা জীবনের সকল বিষয়ে সম্যক ধারনা লাভ করা যায়। পাশাপাশি তাঁর আনীত আদর্শ আমাদের বাস্তব জীবনে অনুস্মরণ ও প্রতিপালনের মাধ্যমে ইহকালীন শান্তি এবং পরকালীন মুক্তি লাভ করা সম্ভব।

মহানবি হযরত মুহম্মদ (স.) এর জীবনাদর্শ নিয়ে লেখা বই পুস্তকের সংখ্যা অনেক। বিভিন্ন সিরাত গ্রন্থের সমন্বয়ে তাঁর জীবন এবং কর্মের একটি সারাংশ পাওয়া সম্ভব। মহানবি (স.) এর সিরাত সম্ভারের উপর ব্যাপক অধ্যয়ন ও গবেষণা করে সকল শ্রেণি পেশার মানুষের পাঠোপযোগী করে সংক্ষিপ্ত অথচ এক অনবদ্য সিরাত গ্রন্থ রচনা করেন দক্ষিণ বঙ্গের বরেণ্য শিক্ষাবিদ, সরকারি বি.এম. কলেজের বাংলা বিভাগের সাবেক বিভাগীয় প্রধান অধ্যক্ষ আ.খা.মো.আবদুর রব। দক্ষিণ বঙ্গের হাজারো শিক্ষকের শিক্ষক এক সময়ের তুখোড় এবং মেধাবী ছাত্র অধ্যক্ষ আ.খা.মো. আবদুর রব স্যার একাধারে মাদরাসা শিক্ষাবোর্ডের অধীনে সর্বোচ্চ ডিগ্রীধারী এবং মেধা তালিকায় শীর্ষস্থান অর্জনকারী, অপরদিকে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় বাংলা বিভাগের অনার্স এবং মাস্টার্সেও কৃতি শিক্ষার্থী ছিলেন। বইটির রচয়িতা বহুমাত্রিক প্রতিভার অধিকারী অধ্যক্ষ আ.খা.মো. আবদুর রব স্যারের মাদরাসা এবং সাধারণ শিক্ষায় লব্ধ জ্ঞানের এক অপূর্ব সমন্বয় লক্ষণীয় এ বইটিতে।

মহানবি হযরত মুহম্মদ (সল্লল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম) শীর্ষক বইটিতে মহানবি হযরত মুহম্মদ (স.) এর জন্মের পূর্ব ইতিহাস সংশ্লিষ্ট গুরুত্বপূর্ণ তথ্য এবং তত্ত্ব, জন্ম এবং জন্ম পরবর্তী ঘটনা প্রবাহ, হালিমাতুস সা’দিয়ার গৃহে লালন-পালন, সিরিয়া সফর, হিলফুল ফুযুল গঠন, পবিত্র কা’বা ঘর সংস্কার, হযরত খাদিজাতুল কুবরা (রা.) এর ব্যবসার দায়িত্বভার গ্রহণ ও তাঁর সাথে বিবাহ বন্ধনে আবদ্ধ এবং এতদসংশ্লিষ্ট ঘটনাবলীর বর্ণনা লেখক অত্যন্ত সাবলীলভাবে এবং প্রাঞ্জল ভাষায় উপস্থাপনের প্রয়াস পেয়েছেন।

মহানবি হযরত মুহম্মদ (স.) এর নবুয়্যত প্রাপ্তির ঘোষণা, ইসলাম প্রচারে নিজ সম্প্রদায়ের লোকদের বিরোধিতা, মক্কার কুরাইশদের নির্মম অত্যাচার-উৎপীড়ন, মুসলমানদের আবিসিনিয়ায় হিজরত এবং তৎপরবর্তী মক্কার কুরাইশদের অত্যাচার এবং হত্যার ষড়ষন্ত্রের ফলে মক্কা হতে মদিনায় হিজরত, মদিনায় ইসলামী রাষ্ট্র গঠন, বিভিন্ন ধর্মীয় এবং সামাজিক সংস্কার, বদর, উহুদ, খন্দক, তাবুক যুদ্ধসহ অনেক গুলো যুদ্ধে অংশগ্রহণ এবং সর্বোপরি মক্কা বিজয়ের মাধ্যমে মুসলমানদের নিরঙ্কুশ বিজয়ের চিত্র, মক্কা বিজয়ের পর মক্কার কাফির-মুশরিকদের দলে দলে ইসলাম গ্রহণ এবং মহানবি হযরত মুহম্মদ (স.) এর বিদায় হজ্জ্বের ঐতিহাসিক ভাষণ ইত্যাকার বিষয়াবলী লেখক অত্যন্ত সুনিপুনভাবে উপস্থাপন করেছেন।

মহানবি (স.) এর জীবনের উল্লেখযোগ্য ঘটনার পাশাপাশি এমন কিছু বিষয় লেখক তাঁর দীর্ঘ অভিজ্ঞতা, গবেষণা এবং স্বভাব সুলভ মুন্সিয়ানার মাধ্যমে এ বইয়ে উপস্থাপন করেছেন, যা সচরাচর অনেক সিরাত গ্রন্থেই অনুপস্থিত। এতে অনুসন্ধিৎসু পাঠক নতুন তথ্যে অবগাহন করার প্রয়াস পাবেন।
লেখক এ গ্রন্থ রচনার জন্য মহানবি (স.) এর অসংখ্য সিরাত গ্রন্থের মধ্যে বহুল পঠিত এবং জনপ্রিয় অনেক গ্রন্থের সহযোগিতা নিয়েছেন অকৃপণভাবে। ফলে বইটি তথ্যগত দিক থেকে অনেক সমৃদ্ধ।

একটি বই পাঠক নন্দিত হওয়ার অন্যতম শর্ত হচ্ছে উপস্থাপন কৌশল এবং ভাষার সরলতা ও প্রাঞ্জলতা। আলোচ্য বইটির লেখক পাঠকের সে চাহিদা পূরণ করতে পেরেছেন এতে সন্দেহের অবকাশ নেই। বইটি পাঠ করে আমার অন্তত তাই মনে হয়েছে। উপস্থাপনের নান্দনিক কৌশল, বক্তব্যের বলিষ্ঠতা, ভাষার সরলতা এবং প্রাঞ্জলতা, তথ্যের বিপুল সমাহার, সাহিত্য এবং শিল্পবোধ বইটিকে অনন্য উচ্চতায় সমাসীন করবে বলে আমি দৃঢ়ভাবে বিশ্বাস করি। বইটির ব্যাপক প্রচার এবং সফলতা কামনা করছি। বইটি সংগ্রহ করতে যোগাযোগ করুন : ০১৭৮৮৭৭০০৬৩

ফিরোজ মাহমুদ সহকারী অধ্যাপক, ইসলামের ইতিহাস ও সংস্কৃতি বিভাগ, লালমোহন ইসলামিয়া কামিল মাদরাসা, ভোলা।

Next Barisal banner ads

Leave a Reply

Your email address will not be published.