সুস্থতা সহজেই

সাজ্জাদুল হক

মহামারী করোনা নিয়ে গোটা মানবসভ্যতা আজ হুমকির মুখে। এ পরিস্থিতিতে ৪টি সহজ আমল আমাদেরকে সুরক্ষা দিতে পারে সকল দুরারোগ্য রোগ আর বিপদ হতে। আসুন জেনে নেই ৪টি সহজ আমল-

১। হারাম থেকে বেচে থাকুনঃ
নিজেকে সকল হারাম থেকে মুক্ত রাখুন। মহামারী আর দুরারোগ্য কোন কিছুই আপনাকে স্পর্শ করবে না, কারন Protection বা সুরক্ষার বিষয়ে রাসুল (সঃ) বলেন- ”এহ্ফাজ আল্লাহ, ইয়াহ্ ফাযাক্” অর্থাৎ আল্লাহ্কে ধারন করো, বদলে আল্লাহ তোমাকে সুরক্ষা দিবে। তাই আপনার ব্যবসা, সংসার কিংবা রাজনীতিতে স্রষ্টার নিয়মকে গ্রহণ করুন, আপনার সুরক্ষার জন্য তিনিই যথেষ্ট।

২। দোয়া’র ক্ষমতা উপভোগ করুনঃ
দোয়া’র রয়েছে অসম্ভব ক্ষমতা। দোয়া পৃথিবীর সর্বোৎকৃষ্ট এন্টিভাইরাস এবং তা বিনামূল্যে। একই সাথে এটি একটি সহজতম কাজ। যদিও আমরা এ ব্যাপারে একেবারেই উদাসীন।
পৃথিবীতে এখনো অনেক রোগ রয়েছে বা আসবে যার কোন ঔষধ নেই। অথচ আল্লাহ্ আমাদের এমন কিছু দোয়া দিয়েছেন যা পড়লে আমরা সকল রোগ ও বিপদ হতে মুক্ত থাকতে পারি। আসুন আমরা ৪ টি কাজের সাথে ৪ টি দোয়াও শিখে নেই।
👉রাসুল (সঃ) বলেন, সারাটাদিন Full Protection বা শতভাগ সুরক্ষিত থাকতে সকাল ও সন্ধ্যায় ৩ বার এই দোয়াটি পড়ুন-
“বিসমিল্লা হিল্লাজি লা ইয়াদুররু মাসমিহি সাইয়ুন ফিল আরদি অলা ফিস সামাই, অহুয়াস সামিউল আলীম”।
👉 “আউযু বিকালিমাতিল্লাহি তাম্মাতি মিন সাররিমা খলাক”
রাসুন (সঃ) বলেন, ভ্রমনের পুর্বে একবার এই দোয়া পাঠ করলে সেই স্থান ত্যাগ করা পর্যন্ত আল্লাহ্ তাকে সব ধরনের খারাপী থেকে সুরক্ষিত রাখবেন।
👉জানা অজানা সকল রোগ মুক্ত থাকার জন্য রাসুল (সঃ) শেখান একটি চমৎকার দোয়া-
“আল্লাহুম্মা ইন্নি আউজুবিকা মিনাল বারাসি, অল জুনানী জুযামী, অমিন সাইয়িইল আসক্বম”।
অর্থাৎ- হে আল্লাহ্! আমি আপনার কাছে আশ্রয় চাই- শ্বেতরোগ, উন্মাদনা, কুষ্ঠ এবং সকল দুরারোগ্য ব্যাধি হতে।
👉 রাসুল (সঃ) বলেছেন, সকাল-সন্ধ্যায় তিন বার তিন কুল অর্থাৎ সূরা ইখলাস, সূরা ফালাক এবং সূরা নাস পড়ুন। গোটা পৃথিবীর সকল দৃশ্য কিংবা অদৃশ্য অনিষ্ট থেকে সুরক্ষা পাবেন। সুবাহান আল্লাহ্! আল্লাহু আকবার! এতো সক্তিশালী সুরক্ষা কবজ থাকা সত্তেও আজ আমরা সামান্য মশার কামড়েই কুপোকাত। শুধু তাই নয়, অদৃশ্য ভাইরাসে আমরা আজ মৃত্যু শয্যায়। অথচ এই প্রেসক্রিপশন মহানআল্লাহ্ তায়ালা থেকে প্রদত্ত, যিনি মুসলিমদের একমাত্র অভিভাবক।

৩। নিয়মিত প্রতিষেধক গ্রহন করুনঃ

দোয়ার সাথে সাথে দাওয়া বা ঔষধের ব্যাপারে রসুল (সঃ) বলেন- সকালে ৭ টি খেজুর খেলে যাদুমন্ত্র, বিষ কিংবা রোগ জীবানু কোন মানুষকে আক্রান্ত করতে পারবে না এবং আধুনিক বিজ্ঞান দ্বারাও এটি প্রমানিত।

৪। আল্লাহর সিদ্ধান্ত মেনে তার সাহায্য কামনা করুনঃ
সকল বিপদে আল্লাহ্’র কাছে সাহায্য চান এবং প্রতি মুহূর্তে তার কাছে ক্ষমা প্রার্থনা করুন। তার সাহায্য আর ক্ষমাই আমাদের জন্য সর্বোত্তম পথ। এর পরেও আমাদের উপর কোন মসিবত আসলে মেনে নিতে হবে, এরই মধ্যে আমাদের কল্যান রয়েছে। এ ধরনের বিশ্বাস আর জীবনাচরনের মধ্য দিয়ে যদি কোন মানুষের মৃত্যু ঘটে তবে রাসুল (সঃ) এর কথা অনুযায়ী তার মৃত্যু হবে শহীদের মৃত্যু। আর আমরা যদি মারা যাই আল্লাহর ক্ষমা, সাহায্য কিংবা অনুগ্রহ ব্যাতিত, তবে সেটাই হবে প্রকৃত মহামারী এবং অপমৃত্যু।

সাজ্জাদুল হক
নির্বাহী পরিচালক
জমজম ইনস্টিটিউট, বরিশাল

Next Barisal banner ads

Leave a Reply

Your email address will not be published.