প্রাথমিকে বরিশাল বিভাগের শ্রেষ্ঠ প্রধান শিক্ষক বাকেরগঞ্জের পরশ

মুক্তবুলি প্রতিবেদক।।
প্রাথমিক জাতীয় শিক্ষা পদক-২০২৩ বরিশাল বিভাগীয় পর্যায়ে শ্রেষ্ঠ প্রধান শিক্ষক মনোনীত হয়েছেন বাকেরগঞ্জের ইরতেজাউর রহমান খান (পরশ)। তিনি বাকেরগঞ্জ পৌরসভার ৬নং ওয়ার্ডের মোফাজ্জল হোসেন খানের বড় সন্তান। পরশ বর্তমানে ১৫২নং বিহারিপুর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে প্রধান শিক্ষক হিসেবে কর্মরত আছেন। ৩৪ তম বিসিএস নন-ক্যাডার থেকে তিনি প্রধান শিক্ষক পদে যোগদান করেন।
.
তিনি সেন্ট আলফ্রেড হাই স্কুল থেকে ৫ম ও ৮ম শ্রেনিতে বৃত্তি লাভ করেন এবং কৃতিত্বের সাথে এসএসসি ও অমৃতলালদে কলেজ থেকে বিজ্ঞান বিভাগে এইচএসসি পাশ করেন। এরপরে চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয় থেকে গনিত বিভাগে কৃতিত্বের সাথে অনার্স ও মাস্টার্স সম্পন্ন করেন। স্কুল ও কলেজ জীবন থেকেই তিনি বিভিন্ন সাংস্কৃতিক কর্মকাণ্ডের সাথে যুক্ত ছিলেন। তিনি বরিশাল বিভাগীয় ছাত্র সমিতি, চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয় শাখার উপদেষ্টা ও সাধারণ সম্পাদক ছিলেন। এছাড়া তিনি বিএনসিসি নৌ শাখার ক্যাডেট ছিলেন। পরশ বিশ্ববিদ্যালয়ের সাংস্কৃতিক সংগঠন অঙ্গন এবং প্রথম আলো বন্ধু সভার সদস্য ছিলেন।
.
তিনি বলেন, বিসিএস থেকে প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক পদে নিয়োগ দেওয়ায় প্রথমে হতাশ হয়েছি।কিন্তু বিদ্যালয়ে যোগদানের পরে শিশুদের আগ্রহ, আন্তরিকতা এবং সহকর্মীদের শ্রদ্ধা ও ভালবাসা পেয়ে আমি মুগ্ধ। সব সময় শিশুদের যৌক্তিক চাহিদাকে প্রাধান্য দেই। শিশুদের সাথে বন্ধুত্বপুর্ন আচরণ করি। বিদ্যালয়ের নিয়ম শৃঙ্খলা ঠিক রেখে সহকর্মীদের সুযোগ সুবিধা প্রদান করি। আমি মনে করি ‘জীবনের জন্য চাকরি, চাকরির জন্য জীবন নয়’. একাডেমিক সুপারভিশনের মাধ্যমে বিদ্যালয়ের শিখন-শিখন কার্যক্রম সুষ্ঠুভাবে সম্পাদন করি। প্রত্যেকটি জাতীয় অনুষ্ঠান সঠিকভাবে পালনের মাধ্যমে শিক্ষার্থীদের মধ্যে এর তাৎপর্য তুলে ধরার চেস্টা করি। বিদ্যালয়ের সকল রেজিঃ ও তথ্যাদি হালফিল রাখি।
.
ইরতেজাউর রহমান খান (পরশ) আরো বলেন, আমি বিভিন্ন সরকারি বরাদ্দের সঠিক ব্যাবহার নিশ্চিত করি। বিভিন্ন সাংস্কৃতিক প্রতিযোগিতা, ফুটবল খেলা ও কাবিং কার্যক্রমে শিক্ষার্থীদের অংশগ্রহণের ব্যবস্থা এবং বিজয়ী হওয়ার ব্যাপারে দিকনির্দেশনা প্রদান করি। ঝরে পড়া রোধ, উপস্থিতির হার বৃদ্ধি, হোম ভিজিট, বিদ্যালয় আঙ্গিনা পরিস্কার পরিচ্ছন্নতা রাখার ব্যাপারে ইনোভেশন পদ্ধতি কাজে লাগাই। ডিজিটাল কন্টেন্ট তৈরি করে মাল্টিমিডিয়া ক্লাস পরিচালনা করি। এবং বিদ্যালয়ের ইউনিক আইডি, উপবৃত্তিসহ সকল অনলাইন কার্যক্রম আমি নিজেই সম্পন্ন করি।বিদ্যালয়ের সম্পদ রক্ষায় স্টকহোল্ডারদের সাথে নিয়ে SWOT analyses এর মাধ্যমে কার্যকর পদক্ষেপ গ্রহণ করি। পেশাগত দক্ষতা বৃদ্ধির জন্য মুক্তপাঠ থেকে অনলাইনে প্রশিক্ষণ গ্রহন করি। বিদ্যালয়ে উপকরণ কর্নার তৈরি করে শ্রেণি কক্ষে ব্যবহার নিশ্চিত করেছি। ‘একটি শিশু একটি স্বপ্ন,  একটি বিদ্যালয় হাজারো স্বপ্ন ’ এই চেতনাকে ধারন করে নিরলসভাবে আন্তরিকতার সাথে কাজ করছি।
.
অর্জন-
১) বরিশাল বিভাগীয় তথ্য অফিস আয়োজিত  শিশু মেলা-২০১৯ এ ২য় স্থান অর্জন।
২) বঙ্গবন্ধু ফুটবল টুর্নামেন্ট -২০১৯ এ উপজেলা পর্যায়ে রানার্সআপ।
৩) বঙ্গমাতা ফজিলাতুননেসা মুজিব ফুটবল টুর্নামেন্ট -২০২৩ এ উপজেলা পর্যায়ে রানার্সআপ।
Next Barisal banner ads

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *